জয়ের হাসি নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি লিভারপুল

03-এগিয়ে গিয়েও জয়ের হাসি নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি লিভারপুল। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে নিজেদের মাঠ অ্যানফিল্ডে টটেনহ্যাম হটস্পার্সের সঙ্গে ১-১ ড্র করেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা।
প্রতিপক্ষের মাঠে এগিয়ে যাওয়ার ভালো সুযোগটি প্রথম পায় টটেনহ্যাম। তবে ১৫ গজ দূর থেকে ক্রিস্তিয়ান এরিকসেনের দূরহ কোণ থেকে নেওয়া শট পরাস্ত করতে পারেনি লিভারপুল গোলরক্ষক সিমোন মিগনোলেকে।
৩৫তম মিনিটে ড্যানিয়েল স্টারিজের তৈরি করে দেওয়া সুযোগটি কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন লিভারপুলের ফিলিপে কৌতিনিয়ো। ৪১তম মিনিটে স্বাগতিক দলের অ্যাডাম লালানার ভলি লক্ষ্যে না থাকলে গোলশূন্যভাবে শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।
স্টারিজ-কৌতিনিয়োর দারুণ বোঝাপড়ায় ৫০তম মিনিটে এগিয়ে যায় লিভারপুল। বাঁ দিকে থাকা স্টারিজকে বল বাড়িয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন কৌতিনিয়ো; ইংল্যান্ডের ফরোয়ার্ডের ফিরতি বাড়ানো বল সহজেই লক্ষ্যে পৌঁছে দেন ব্রাজিলের মিডফিল্ডার। লিভারপুলের এগিয়ে যাওয়ার স্বস্তি ৬৩তম মিনিটে কেড়ে নেন হ্যারি কেইন; বাঁ দিক থেকে এরিকসেনের নীচু কাটব্যাকে বল পেয়ে দূরের পোস্ট দিয়ে জোরাল শটে গোল করেন ইংল্যান্ডের এই ফরোয়ার্ড। ইপিএলের এই মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলদাতা কেইনের গোল হলো ২২টি। এর একটু পর এরিকসেনের আরেকটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেন লিভারপুল গোলরক্ষক।
শেষ দিকে কৌতিনিয়োও শট পোস্ট ঘেঁষে বাইরে বেরিয়ে যায়। টটেনহ্যামের এরিকসেনের ফ্রি কিকও ঠিকানা খুঁজে পায়নি। তাতে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে মাঠ ছাড়তে হয় দুই দলকে। এই ড্রয়ে লিগে শীর্ষে থাকা লেস্টার সিটির (৩১ ম্যাচে ৬৬ পয়েন্ট) আরও কাছাকাছি যাওয়ার সুযোগ হারাল দ্বিতীয় স্থানে থাকা টটেনহ্যাম; ৩২ ম্যাচে ৬২ পয়েন্ট তাদের। দুই ম্যাচ কম খেলা লিভারপুল ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে নবম স্থানে। দিনের প্রথম ম্যাচে অ্যাস্টন ভিলাকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দেয় চেলসি। একই ব্যবধানে বোর্নমাউথকে ম্যানচেস্টার সিটি ও ওয়াটফোর্ডকে আর্সেনাল হারায়। ৩১ ম্যাচে ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে আর্সেনাল তৃতীয় স্থানে আছে। চতুর্থ স্থানে থাকা সিটির পয়েন্ট ৫৪। ৩১ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে দশম স্থানে আছে চেলসি।

SHARE