চাঁপাইনবাবগঞ্জে এলজিএসপি-২ প্রকল্পের জেলা পর্যায়ে দিনব্যাপী কর্মশালা

37

gourbangla logo

তৃণমূলের স্থানীয় সরকারের জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে গণতন্ত্র এবং বাংলাদেশকে এগিয়ে যাচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদ। এই প্রতিষ্ঠানের গুরুত্ব অনেক বেশি। আর এবারই প্রথমবারের মত ইউনিয়ন পিরষদ নির্বাচন দলীয় প্রতীকে হচ্ছে। গত কাল সোমবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সেকেন্ড লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্ট-২এর আওতায় জেলা পর্যায়ে দিনব্যাপী কর্মশালার উদ্বোধন পর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন-জেলা প্রশাসক মো. জাহিদুল ইসলাম। এই প্রকল্প প্রসঙ্গে তিনি বলেন-এলএসপি-২ প্রকল্পের মাধ্যমে সারাদেশে তৃণমূল পর্যায়ে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। তবে হয়ত সুশাসন এবং জাববদিহিতা না থাকায় সবখানে হয়ত কাজের মান ভালো হয় নি। এই প্রকল্পে নারীর ক্ষমতায়নের কথাও বলো আছে। ফলে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্যরা কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন। তিনি বলেন-ইউনিয়ন পরিষদ গুলো এখনও কেন্দ্রীয় সরকারের উপর নির্ভর করে। এই নির্ভরতা কাটাতে হবে। নিজস্ব আয় বৃদ্ধি করতে হবে। কর আদায়ে জোর দিতে হবে। কেনা না অনেক ইউনিয়ন পিরষদ এখনও ঠিকমত কর আদায় না করে কেন্দ্রীয় সরকারের দিকে তাকিয়ে আছে। দুর্বলতা গুলো চিহ্নিত করে সামনের দিকে এগুতে হবে। জনঅংশগ্রহণ বৃদ্ধি করতে হবে। জবাবদিহিতা নিশ্চিৎ করতে হবে।
কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন, স্থানীয় সরকার চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র উপ-পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন-এই প্রকল্পটি দেখা শোনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের। কিন্তু তাদের জন্য কোন বরাদ্দ বা সম্মানী বরাদ্দ রাখা হয়নি। রাখা হলে কাজে আরও গতি আসতো। কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাকসুদা বেগম সিদ্দীকা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মির্জা শাকিলা দিল হাছিন, জেলা তথ্য অফিসার ওয়াহেদুজ্জামান, স্থানীয় সরকার শাখার সহকারী পরিচালক রামকৃষ্ণ বর্মন, এলজিএসপি-২ এর জেলা সহায়ক আশরাফুল ইসলাম, পায়াকট বাংলাদেশের ওয়ার্কসপ কো-অর্ডিনেটর হেলাল উদ্দিনসহ অন্যরা। স্থানীয় সরকার বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এবং পায়াকট বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় কর্মশালায় সাংবাদিক, বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সদস্য ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন। কর্মশালায় এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় সরকার বিভাগের প্রত্যন্ত অঞ্চলে উন্নয়নের বিভিন্ন বিষয়ের প্রজেক্টরের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়। জেলার ৫ উপজেলায় বাস্তবায়ীত এলজিএসপি-২ প্রকল্পের চিত্র তুলে ধরার সময় জেলা সহায়ক আশরাফুল ইসলাম বলেন-জেলা সদর, গোমস্তাপুর, নাচোল ও ভোলাহাট উপজেলায় এই প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালিত হলেও শিবগঞ্জ উপজেলায় বন্ধ রয়েছে।

SHARE