লাগামহীন রসুন ও ডালের দাম

88

01খুচরা বাজারে এক মাস আগে আমদানি করা বড় দানার মসুর ডালের দাম ছিল ৯০ টাকা থেকে ৯৫ টাকা। শুক্রবার তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০০ টাকা থেকে ১১৫ টাকা। মাসের ব্যবধানে ডালের দাম বেড়েছে ১০ থেকে ২০ টাকা বা ১৬ দশমিক ২২ শতাংশ। ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। বেশ কিছু দিন আমদানি করা রসুনের দাম বাড়লেও এবার দেশি রসুনের ওপর দাম বাড়ার প্রভাব পড়েছে। গত সপ্তাহে যে দেশি রসুন বিক্রি হয়েছে ৬০ থেকে ৮০ টাকায়, শুক্রবার রাজধানীর খুচরা বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকায়। প্রতিকেজি দেশি রসুনের দাম বেড়েছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। আমদানি করা প্রতিকেজি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকা থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, গত সপ্তাহে দু’একদিনের বৃষ্টির অজুহাতে রসুনের দাম পাইকারি বাজারে বেড়ে গেছে। তাই খুচরা বাজারে বেশি বিক্রি করতে হয়। বাজারে চিনির দাম আগের সপ্তাহে বাড়লেও বর্তমানে স্থির রয়েছে। শুক্রবার প্রতিকেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকায়। ছোলার দামেও একই চিত্র লক্ষ করা গেছে। প্রতিকেজি ছোলা বিক্রি হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮০ টাকায়। খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ (দেশি) বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকায়। ডিমের দাম গত সপ্তাহে সামান্য বাড়লেও বর্তমানে তা স্থির রয়েছে। খুচরা বাজারে প্রতি হালি ব্রয়লার মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ৩২ টাকা থেকে ৩৪ টাকায়। পাইকারি বাজারে ব্রয়লার মুরগির একশ ডিম ৭৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ৭০০ টাকা। এ ছাড়া হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ৮২০ টাকায় (একশ)। রাজধানীর স্বামীবাগ, কাপ্তানবাজার, সেগুনবাগিচা গিয়ে দেখা গেছে, মানভেদে প্রতিকেজি বেগুন ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায়, সাদা গোলাকার বেগুন ২৫ টাকায়, গাজর ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, খিরাই ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকায়, ঝিঙে ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকায়, চিচিঙ্গা ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, পেঁপে ৩০ টাকায়, ধুন্দুল ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, শালগম ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, বরবটি ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, কচুর ছড়ি ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায়, লতি ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, কাঁচা মরিচ ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকায়, টমেটো ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, করলা ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকায়, ঢেঁড়স ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, উচ্ছে ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকায়, পটল ৪০ টাকায়, সজনে ৬০ টাকায় এবং কাকরল ১০০ টাকা থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে প্রতিটি বড় লাউ ৩৫ টাকায় এবং ছোট লাউ ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতিটি ছোট কুমড়া ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা এবং বড় কুমড়া ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪৫ টাকা থেকে ১৬০ টাকায়। বাজারে গরুর ও খাসির মাংসের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। প্রতিকেজি গরুর মাংস ৩৮০ টাকা থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিকেজি খাসির মাংস ৫৫০ টাকা থেকে ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে সয়াবিন তেলের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বাজারে প্রতিকেজি খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা থেকে ৮৫ টাকায়। পাঁচ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ টাকা থেকে ৪৫৫ টাকায়। এক লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৯২ টাকা থেকে ৯৫ টাকায়।

SHARE