হিরোশিমা সফর করা যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি

88

01-প্রথম অ্যাটম বোমা বিস্ফোরণের স্মৃতিবাহী জাপানের হিরোশিমা মেমোরিয়ালে এক ঐতিহাসিক সফর সম্পন্ন করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি। বিবিসি জানিয়েছে, হিরোশিমা সফর করা যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী তিনি।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ পর্যায়ে ১৯৪৫ সালের ৬ অগাস্ট যুক্তরাষ্ট্র হিরোশিমায় অ্যাটম বোমা নিক্ষেপ করলে শহরটির এক লাখ ৪০ হাজার বাসিন্দা নিহত হন।
বিশ্বের শিল্পোন্নত সাতটি দেশের জোট জি-৭ এর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক বৈঠকে যোগ দিতে কেরি হিরোশিমা গিয়েছেন। হিরোশিমায় জি-৭ এর বৈঠকে যোগ দিতে যুক্তরাজ্য, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালির পররাষ্ট্রমন্ত্রীও উপস্থিত হয়েছেন। জাপানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেখানে তাদের অভ্যর্থনা জানিয়েছেন। দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা মেমোরিয়ালে উপস্থিত হয়ে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন এবং নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। এরপর জি-৭ পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা নিকটবর্তী হিরোশিমা মিউজিয়াম পরিদর্শন করেন। এই মিউজিয়ামে অ্যাটম বোমা হামলায় নিহতদের জীবনের গল্প তুলে ধরা হয়েছে। মিউজিয়ামের অতিথি বইয়ে কেরি লিখেছেন, “একটি নগ্ন, কঠোর স্মৃতি যা বার বার ফিরে আসে, এটি আমাদের পারমাণবিক অস্ত্রের হুমকি দূর করার দায়িত্বের কথাই শুধু মনে করিয়ে দেয় না, যুদ্ধকে এড়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করার দিকে আমাদের মনোযোগকেও নিবদ্ধ হতে বলে।” যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সফরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী কেরি অ্যাটম বোমা হামলার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করবেন না।
“হিরোশিমায় আমার সফর আমাদের সম্পর্কের (জাপানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের) বিশেষ শক্তিমত্তার দিকটি তুলে ধরে এবং যুদ্ধের ওই কঠিন সময়টির পর থেকে আমাদের যৌথ অগ্রযাত্রার বিষয়টি প্রকাশ করে,” জাপানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফুমিয়ো কিশিদাকে বলেছেন কেরি। তিনি বলেছেন, “এই যাত্রা অতীতের দিকে নয়, এটি বর্তমানের এবং ভবিষ্যতের দিকে।” যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, মে মাসে জাপানে জি-৭ নেতাদের শীর্ষ সম্মেলনের সময় প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও হিরোশিমা সফর করার কথা বিবেচনা করছেন।

SHARE